Breaking News

সোরিনাম (Psorinum)

সোরিনাম (Psorinum)

ক্রিয়াস্থানঃ সোরিনাম একটি নোসড জাতীয় ঔষধ এবং গভীর ক্রিয়াশীল এন্টিসোরিক, এন্টিসাইকোটিক, এন্টিসিফিলিটিক ও টিউবারকুলার ঔষধ। সোরাঘটিত রোগসমূহে ইহার অসীম ক্রিয়া। চর্মের উপর সোরিনামের প্রধান ক্রিয়া প্রকাশ পায়। চর্মের উপর ক্রিয়া করিয়া চুলকানি যুক্ত রক্ত ও পূঁজপূর্ণ, ক্ষতকারক বা শ্লুল্ক উদ্ভেদ সৃষ্টি করে।

নির্দেশক লক্ষণঃ ঠান্ডা বা শীতল বায়ু অসহ্য। শরীরে উদ্ভেদ নাই অথচ অসহ্য চুলকানি বর্তমান থাকে। অতিশয় চুলকানির জন্য অনিদ্রা। শিশু রক্তহীন, মলিন, রুগ্ন, দিনরাত্রির মধ্যে একবার ঘুমায় না। শুধু কাদেঁ কিংবা দিনের বেলায় বেশ হাসে, খেলা করে, কিন্তু রাত্রে বড় বিরক্ত করিয়া তোলে, ছটফট করে, চিৎকার করিয়া কাদেঁ। নিঃসৃত স্রাব অত্যন্ত দুর্গন্ধ, বাহ্য প্রস্রাব, কানের পুজঁ, ঢেকুর, স্ত্রীলোকের ঋতু ও প্রদর স্রাব, ঘাম ইত্যাদি সমস্ত প্রকারের স্রাবেই অত্যন্ত কটু গন্ধ, পচাঁ গন্ধ। ময়লার গন্ধ, ইহাদের অপেক্ষা ও কটু গন্ধ, শরীরে দুর্গন্ধ, স্নান করিলেও ঐ দুর্গন্ধ যায় না। অতিশয় ক্ষুধা। চর্মপীড়া, উদ্ভেদগুলি সহজে পাকে, কখনও শুষ্ক, চর্ম দেখিতে কদাকার, যেন জীবনে কখনও স্নান করে নাই, কোন স্থান এবড়ো থেবড়ো বা মসৃণ যেন তৈল মাখানো। চর্মরোগ বসিয়া গিয়া কোন পীড়া বিশেষতঃ কাশির উৎপত্তি, প্রাতে বেড়াইবার সময়ও সন্ধ্যায় শুইলে কাশির বৃদ্ধি। গয়ার সবুজ হলদে লোনা স্বাদ বিশিষ্ট পুঁজের মত, গয়ার উঠিবার পূর্বে অনেকক্ষণ ধরিয়া কাশে। বহু দিনের পুরাতন প্রমেহ আরোগ্য হইতে চায় না, সুনির্বাচিত ঔষধও বিফল হয়। কোমর বেদনাসহ কোষ্ঠবদ্ধ সালফারে উপকার হয় না। উদরাময় হঠাৎ বাহ্যের বেগ (সালফার, এলো) মলে বিশ্রী দুর্গন্ধ, রাত্রি ১টা হইতে ৪টার মধ্যে বৃদ্ধি। ডিম পচাঁর ন্যায় দুর্গন্ধযুক্ত উদগার। মাথায় শুষ্ক আশেঁর মত পদার্থের দ্বারা আবৃত কিংবা রসপূর্ণ দুর্গন্ধ উদ্ভেদ, তাহা হইতে আঠার মত দুর্গন্ধ পুঁজ ব ারস পড়ে। সর্বক্ষণ নাক দিয়ে সর্দি ঝড়ে, সমস্ত যন্ত্রের কার্য ধীর গতিতে চলে, ঔষধের ক্রিয়া অল্পক্ষণ স্থায়ী হয়। পরিপাক যন্ত্রের দুর্বলতা, দুর্গন্ধ উদরাময়, অস্বাভাবিক প্রবল ক্ষুধা ও বলক্ষয়কারী ঘর্ম ইহার বিশিষ্টতা।

মানসিক লক্ষণঃ সোরিনামের রোগী অতিশয় বিষণœ। সোরাবিষ ও গন্ডামালা ধাতুগ্রস্থ রোগী, শীতকাতুরে, অত্যন্ত ছটফট করে, সামান্য কারণে চমকিয়া উঠে বা ভয় পায়। রোগী মনের মধ্যে ভীতিপূর্ণ উদ্বিগ্নতা ও উৎকন্ঠা এবং ধর্মোন্মত্ততা, নৈরাশ্য, আত্নাহত্যার ইচ্ছা। ইহার মানসিক লক্ষণগুলো রাত্রিকালে প্রকাশ পায়।

প্রয়োগ ক্ষেত্রঃ পুরাতন পীড়ায় সুনির্বাচিত ঔষধে উপকার না হইলে, রক্তশূন্য, শিশুদের পীড়া প্রতি শীতে সূচনা হইলে, চর্মপীড়া, বিষন্নতা, পরিপাক যন্ত্রেও পীড়া, উদরাময়, হাঁপানী, বা শ^াসকষ্ট, স্ত্রীরোগ, প্রতিশয্যায় জ¦র, প্রতিক্রিয়া শূণ্যতা, অতিশয় দুর্গন্ধযুক্ত কর্ণপীড়া, অস্থিক্ষত, যক্ষা, শোথ, পুরাতন যকৃত প্রদাহ প্রভৃতি।

সর্ম্পকযুক্ত ঔষধঃ গর্ভাবস্থায় বমনে ল্যাকটিক এসিডের পর, এবং ডিম্বকোষের আঘাতজনিত পীড়ায় আর্ণিকার পর সোরিনাম উত্তম ফলদায়ক। স্তন ক্যানসারের সোরিনামের পর সালফার উপযোগী। খোঁচপাঁচড়ায় হিপার তুল্য। রোগের সময় ঘর্মে নেট্রাম মিউর তুল্য, রাত্রে ক্ষুধায় চায়না ও সালফার তুল্য, শয্যামূত্রে ক্রিয়োজোটে তুল্য, সোরিনাম ও ল্যাকেসিস পরস্পর শত্রুভাবাপন্ন।

বৃদ্ধিঃ ঠান্ডায়, ঠান্ডা বাতাসে ও ঠান্ডা জলে স্নানে, আবহাওয়ার পরিবর্তনে, সন্ধ্যাকালে, দুই প্রহর রাত্রির পূর্বে, অনাবৃত বায়ুতে, কফির গন্ধে। অম্ল গন্ধে, রন্ধন করা মাংসের গন্ধে, ফল ও শবজী আহারে, আলু ভক্ষণে, ডিম, মাছ, দুধ ও মধু সেবনে এবং স্তন দানে বৃদ্ধি লক্ষণ দেখা যায়।

উপশমঃ প্রাতে শয়ন করিলে, গৃহাভ্যন্তরে, আহারে বিশেষ করিয়া শিরঃপীড়ার সময় আহারে, নাসিকা হইতে রক্তস্রাবে ও জোরে চাপনে।

অনুপূরকঃ টিউবাকুলার, সালফার।

পরবর্তী ঔষধঃ এলো, চায়না, হিপার, ফেরাম, টিউবারকুলার।

ক্রিয়ানাশকঃ কফিয়া।

মেয়াদঃ ৩০ থেকে ৪০ দিন।

শক্তিঃ ২০০ থেকে উর্ধশক্তি। (উচ্চতম শক্তিই সর্বাধিক ক্রিয়াশীল)

About The Author

DR. MOHAMMAD SHARIFUL ISLAM

নামঃ- ডা. মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম হোমিও হল সংক্ষিপ্ত নামঃ এস এই হোমিও হল

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *