Breaking News

প্রস্রাবের পীড়ায় হোমিওপ্যথিক চিকিৎসা

প্রস্রাবের রোগ সমুহঃ গনোরিয়া, সিফিলিস প্রভূতি সংক্রামিত রোগ হইয়া, ঠান্ডা লাগিয়া, জলে ভিজিয়া, রাত্রি জাগরন, শারিরীক বা মানসিক পরিশ্রম নানাবিধ কারনে মুত্র যন্ত্রের পীড়া হইয়া থাকে। বৃদ্ধ বয়সে মুত্র গ্রন্হির বিবৃদ্ধি জনিত নানা প্রকার প্রস্রাবের পীড়া দেখা দেয়।

  হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা


একোনাইট ন্যাপঃ-মিশু ভূমিষ্ট হইবার পর প্রস্রাব না হইলে একোনাইট অব্যর্থ।শিশু প্রসবের পরপর এই সমস্যা দেখা দিলে একোনাইট প্রয়োগে আরোগ্র হয়।


বোরাক্সঃ-শিশু প্রস্রাব করিবার সময় কাদিয়া উঠে দুর্গন্ধ যুক্ত গরম প্রস্রাব।নিম্ন গতিতে ভয় পাওয়ার লক্ষণে ইহা অব্যর্থ।


সিনাঃ-কৃমি গ্রস্হ শিশুদের ঘন ঘন প্রস্রাব,অসাড়ে ফোটা ফোটা প্রস্রাবে সিনা ফলপ্রদ।


স্যাবাল সেরুঃবৃদ্ধ বয়সে এই রোগ অধিক হয়।জননেন্দ্রিয়ের গোড়ার দিকে টাটানি ব্যাথা,ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ।অনেকক্ষণ কোথ দিবার পর ফোটা ফোটা প্রস্রাব।কষ্টদায়ক প্রস্রাব,প্রস্রাবে জ্বালা যন্ত্রণা,প্রস্রাব নালিতে কি যেন আটকাইয়া আছে অনুভব।প্রষ্টেট গ্ল্যন্ডের বিবৃদ্ধির জন্য প্রস্রাব ত্যাগে ভীষন কষ্ট প্রভূতি লক্ষণে ইহা উপকারী ঔষধ।


ইকুইজিটাম হাইঃমুত্র নালীতে বেদনা,সর্বদা প্রস্রাব করার ইচ্ছা।প্রস্রাব করিলেও প্রস্রাবের ভাব দুর হয় না।প্রস্রাব শেষ হইবার পর ভীষণ বেদনা,প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত,বৃদ্ধ বয়সে প্রস্রাব ধারনে অক্ষমতা,অর্থাৎ প্রস্রাবের স্হানে যাইতে না যাইতেই প্রস্রাব হইয়া পড়ে প্রভূতি লক্ষণে ইহা উপকারী।


টার্নেরাঃ-বৃদ্ধ বয়সে প্রস্রাব ধারণে অক্ষম।দিনরাত অসারে ফোটা ফোটা প্রস্রাব ঝরে।অসাড়ে প্রস্রাব নির্গমনে ইহা অব্যর্থ।


পেট্রোসেলিনিয়মঃ-হঠাৎ প্রসাবের বেগ।এক মুহুর্ত বিলম্ব সহ্য হয় না।প্রস্রাবের স্হানে যাইতে না যাইতে ঝরিয়া পড়ে।প্রস্রাব ত্যাগকালে লিঙ্গমুন্ড বেদনা,জ্বালা,যন্ত্রনা।হঠাৎ প্রস্রাবের বেগ ইহার বিশেষ লক্ষণ।


হায়োসিয়ামসঃ-মুত্র থলির পক্ষাঘাত বশত অসাড়ে ফোট ফোটা প্রস্রাব নিঃসরণ।প্রস্রাবের পর প্রসুতির প্রস্রাব বন্ধ হইলে হায়োসিয়ামস ইপকারী।


ক্লিমেটিসঃ-মুত্র নালির ছিদ্র সরু হইয়া যায়।প্রস্রাব থামিয়া থামিয়া নির্গত হইতে থাকে।লিঙ্গ মুন্ডে ভয়ানোক ব্যাথা।প্রস্রাবের জন্য রোগী অনেকক্ষণ বসিয়া থাকে।মুত্রনালী সংকুচিত ফোটা ফোটা মুত্র পড়ে।


চিমাফিলাঃপ্রস্রাব ঘোলা দুর্গন্ধযুক্ত,অল্প প্রস্রাব একটু একটু করিয়া হয়।প্রস্রাব ত্যাগ কালে ভীষণ জ্বালা,প্রস্রাবের শেষ ভাগে কোথনী ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ,প্রস্রাবের শ্লেমা ও তলানী পড়ে ইত্যাদি লক্ষণে ইহা উপকারী।


এনাগেলিসঃ-মুত্র পথের মুখ জুড়িয়া থাকে তাই প্রস্রাব একাধিক নালে নির্গত হয়।প্রস্রাবের সময় বা পরে জ্বালা করে ইত্যাদি লক্ষণে ইহা অব্যর্থ।


এসিড নাইটঃ-প্রস্রাবে অত্যন্ত ঝাঝালো দুর্গন্ধ।প্রস্রাব ত্যগ কালিন অত্যন্ত জ্বালা পোড়া।ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ অল্প অল্প প্রস্রাব নিঃসরণ।যন্ত্রণা নিবারনার্থে রোগী ঘন ঘন প্রস্রাবে যায়।মাঝে মাঝে প্রস্রাবে রক্ত।ঠোটের কোনে ঘা মুখে দুর্গন্ধ।মুখ থেকে লালা পড়ে প্রভূতি লক্ষণে ইহা উপকারী।


কষ্টিকামঃ-প্রস্রাবের বেগ ধারণে অক্ষম।অসারে প্রস্রাব নিঃসরন।মুত্র থলির পক্ষাঘাত বসত প্রসাব চলিত অবস্হায় রোগী বুঝিতে পারে না প্রস্রাব হইতেছে কিনা।হাচিতে,কাশিতে প্রস্রাব ঝরিয়া যায়।অতি ধীরে ধীরে প্রস্রাব নির্গমনে ইহা উপকারী।


কোনিয়ামঃ-বৃদ্ধ বয়সে মুত্র পীড়ায় ইহা ধনন্তরী।প্রস্রাব থামিয়া থামিয়া অতি ধীরে নির্গত হয়।


কার্লসবাডঃ-প্রস্রাব খুব ধীরে ধীরে চিকন নালে বাহির হয়।তলপেট চাপিয়া প্রস্রাব করিতে হয়।নতুবা প্রস্রাব হইতে চায় না।


স্ট্যাফিসেগ্রিয়াঃ-প্রস্রাব করিবার সময় কোন রুপ জ্বালা যন্ত্রণা হয় না।অন্য সময় মুত্র নালীতে জ্বালা থাকিলে ইহা উপকারী।


এসিড বেঞ্জোয়িকঃ-প্রস্রাবে অত্যন্ত দুর্গন্ধ মাঝে মাঝে অসাড়ে প্রস্রাব ত্যাগ।প্রস্রাব সম্বন্ধীয় যে কোন রোগে ঘোড়ার চোনার মত প্রস্রাবে কটু দুর্গন্ধ থাকিলে ও রোগী শীত কাতর হইলে ইহা অমোঘ।


ষ্টিলিন্জিয়া ঃ জলের বর্ণের প্রস্রাবের নীচে ময়দা ঘোলার মত তলানী পড়িলে ষ্টিলিন্জিয়া উপকারী।


ক্যান্থারিস ঃপ্রস্রাবের জ্বালা ক্যান্হারিসের প্রধান পরিচয়।জ্বালা যুক্ত ফোটা ফোটা প্রস্রাব,প্রস্রাব ত্যাগে অত্যন্ত বেগ ও কষ্ট,যে কোন রোগের সঙ্গে উপরোক্ত লক্ষণগুলো থাকিলে ক্যান্হারিসে তা আরগ্য করিতে পারে।


সর্সাপেরিলাঃ-মুত্র ত্যাগের শেষ মুহুর্তের জ্বালায় ইহা ধনন্তরী।বসিয়া প্রস্রাব করিলে ফোটা ফোটা প্রস্রাব পরে।দাড়াইয়া প্রস্রাব করিলে সরলভাবে প্রস্রাব নির্গত হয়।উপরিউক্ত লক্ষনে এই ঔষধ ব্যবহার করিয়া অনেক স্হলে উপকারী।

 

বাইওকেমিক চিকিৎসা


ক্যালি ফসঃ-মুত্র থলির পক্ষাঘাত বসত অসাড়ে মুত্র নিঃসরণ।প্রস্রাবে ভয়ানক দুর্গন্ধ।প্রস্রাব ধারনের অক্ষমতায় ক্যালি ফস উপকারী।


ফেরাম ফস,ক্যালি মিউরঃ-সর্ব প্রকার প্রস্রাব সম্বন্ধীয় পীড়ার প্রথমাবস্হায় ফেরাম ফস ও ক্যালি মিউর পর্যায়ক্রমে সেবন করিলে পীড়া প্রায়ই আরগ্য হইয়া যায়।

About The Author

DR. MOHAMMAD SHARIFUL ISLAM

নামঃ- ডা. মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম হোমিও হল সংক্ষিপ্ত নামঃ এস এই হোমিও হল

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *