Breaking News

গর্ভাবস্থায় যোনিদ্বারের চুলকানি

গর্ভাবস্থায় যোনিদ্বারের চুলকানি

সাধারণত গর্ভ সঞ্চারের দুই এক মাস পরেই অনেক স্ত্রীলোকের যোনিদ্বার হইতে সাদা ক্লেদ নির্গত হওয়া কিংবা উক্ত স্থানে ফোস্কার ন্যায় ফুস্কুড়ি হওয়া প্রভৃতি কারণে এইরুপ চুলকানির উদ্রেক হইয়া থাকে।

চিকিৎসা

প্রধান ঔষধঃ মার্কুরিয়াস সল, সিপিয়া, সালফার, পালসেটিলা ইত্যাদি

মার্কুরিয়াস সলঃ যোনির বাহিরের দিকে ফোস্কার ন্যায় ফুস্কুড়ি, যোনির মধ্যে প্রদাহ, ফুলিয়া উঠা ও তৎসহ অত্যন্ত চুলকানি।

সিপিয়াঃ যোনির বাহিরে ফুস্কুড়ি হয়ে চুলকানি ও তৎসহ জ¦ালা,টাটানি এবং লালবর্ণ হওয়া।

সালফারঃ যোনির চারপাশে ফুস্কুড়ি ও তার জন্য চুলকানি, জ¦ালা।

পালসেটিলাঃ যোনিদ্বারে ও উহার বাহিরে অতিশয় চুলকানি এবং হুলবিদ্ধবৎ বেদনা।

লাইকোপডিয়ামঃ যোনিদ্বারে দিয়ে সাদা ক্লেদ নির্গত হওয়া ও তার জন্য অত্যন্ত চুলকানি এবং জ¦ালা।

গ্রাফাইটিসঃ যোনিদ্বারে চুলকানি সহ আর্দ্রতা, চুলকাইলে ফুলিয়া উঠা ও মধুর মত আঠাবৎ পদার্থ নির্গত হয়।

ঔষধ প্রয়োগঃ যতদিন না রোগের উপশম হয় ততদিন প্রত্যহ রাত্রে একমাত্রা করিয়া ঔষধ প্রয়োগ করিবে।

আনুষঙ্গিক নিয়মঃ সোহাগার গুঁড়া জলে মিশাইয়া উক্ত জলে নেকড়া ভিজাইয়া আক্রান্ত স্থান লাগাইলে উপকার পাওয়া যায়।

About The Author

DR. MOHAMMAD SHARIFUL ISLAM

নামঃ- ডা. মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম হোমিও হল সংক্ষিপ্ত নামঃ এস এই হোমিও হল

Related posts

24 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *